ইউরোপের ধর্মসংস্কার আন্দোলনের মার্টিন লুথারের আবদান।

 ইউরোপের ধর্মসংস্কার আন্দোলনের মার্টিন লুথারের আবদান। 

অথবা 

মার্টিন লুথারের নেতৃত্বে ধর্মসংস্কার আন্দোলনের পরিচয় দাও।



DSE B2

History Suggestions

Calcutta University


উত্তর ঃ- মার্টিন লুথার ছিলেন জার্মানির উইটেনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মতত্বের অধ্যাপক। তিনি অগস্টাইন ভ্রাতৃসংঘের সদস্যপদ গ্রহণ করে সন্ন্যাসীর জীবন গ্রহণ করেন। ১৫১০ খ্রিটাব্দে রোমে গিয়ে ক্যাথলিক ধর্মের ধর্মগুরু পোপ ও যাজকদের বিলাস ব্যাসন ও চা দুর্নীতি দেখে তার চার্চ সম্পর্কে মোহভঙ্গ ঘটে। এরপর তিনি দেশে ফিরে পবিত্রতা বাইবেলের আদর্শে নতুন করে ধর্ম সংক্রান্ত পঠন পাঠন শুরু করেন। এর ফলে তিনি জানতে পারেন অন্তরের বিশ্বাসই মানুষের জীবনের মূল ভিত্তি।


(১) জার্মানিতে ক্ষমাপত্র বিক্রি : এই সময় রোমের সেন্ট পিটার্স গির্জা সংস্কারের জন্য অর্থ আদায়ের উদ্দেশ্যে পোপ তার প্রতিনিধি হিসেবে টেটজেল নামে এক যাজককে নিযুক্ত করেন। পোপ প্রচার করেন যে তার স্বাক্ষরিত ক্ষমাপত্র বা পাপ মুক্তিপত্র কিনলে মানুষ সকল পাপ থেকে মুক্ত হতে পারবে। টেটজেল জার্মানিতে এহ ক্ষমাপত্র বিক্রি করতে শুরু করেন। মার্টিন লুথার এর তীব্র প্রতিবাদ জানান।


(২) পঁচানব্বই গবেষণাপত্র : মার্টিন লুথার প্রকাশ্যে ঘোষণা করেন ক্ষমাপত্র বিক্রি করে চার্চ অন্যায়ভাবে সাধারণ মানুষকে ঠকিয়ে অর্থ আদায় করছে। তিনি আরও বলেন অনুতাপই হচ্ছে পোপের প্রকৃত প্রায়শ্চিত্ত। অনুতপ্ত চিত্তে ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করলেই পাপ মুক্ত হয়, এজন্য চার্চের দ্বারস্থ হওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই। ধর্মের নামে এই অনাচারের প্রতিবাদে লুথার ১৫১৭ খ্রিস্টাব্দের ৩১ অক্টোবর ক্ষমাপত্রের বিরুদ্ধে ৯৫ দফা অভিযোগপত্র ইউটেনবার্গ গির্জার দরজায় টাঙিয়ে দেন। এটি পঁচানব্বই গবেষণাপত্র নামে পরিচিত।


(৩) মতবাদ : মার্টিন লুথার খ্রিস্টধর্মের মূল নীতিকে ব্যাখ্যা করে ১৫২০ খ্রিস্টাব্দে ‘ব্যাবিলোনিয়ান ক্যাপটিভিটি’ নামে একটি গ্রন্থ রচনা করেন। এই গ্রন্থে তিনি পোপকে ধর্মগুরু বলে মানতে অস্বীকার করেন। বাইবেলকে তিনি খ্রিস্টানদের একমাত্র ধর্মগ্রন্থ বলে ঘোষণা করে বাইবেল অনুযায়ী সম্পত্তিতে সকলের সমান অধিকারের কথা বলেন। তার এই গ্রন্থটিতে ‘দ্বিতীয় বাইবেল’ বলা হয়। পোপর বিরুদ্ধে তার এই মতামত প্রচারিত হওয়ায় পোপ ক্ষুব্ধ হয়ে লুথারকে চার্চ থেকে বহিষ্কার করেন। লুথার প্রকাশ্যে পোপের নির্দেশটি পুড়িয়ে দেন।


(৪) প্রোটেস্ট্যান্ট আন্দোলন: মার্টিন লুথার প্রচলিত ধর্মের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ করে যে ধর্মসংস্কার আন্দোলন পরিচালিত করেছিলেন তা প্রোটেনস্ট্যান্ট আন্দোলন নামে পরিচিত হয় এবং তার ধর্মমত প্রোটেস্ট্যান্ট বা প্রতিবাদী ধর্ম নামে অভিহিত হয়।


(৫) খ্রিস্টধর্মের বিভাজন: এমতাবস্থায় পোপ দশম লিও ও রোমান সম্রাট পঞ্চম চার্লস ১৫২১ খ্রিস্টাব্দে ওয়ার্মস শহরে একটি ধর্মসভা আহ্বান করে মার্টিন লুথারকে তার ধর্মবিরোধী কার্যকলাপ বন্ধ করতে নির্দেশ দেন। কিন্তু লুথার তার মতবাদে অবিচল থাকায় তাঁকে পুড়িয়ে মারার নির্দেশ দেওয়া হয়। সৌভাগ্যক্রমে স্যাক্সনির রাজা ফ্রেডারিক লুথারকে আশ্রয় দিলে পোপ ও সম্রাটের মনোবাঞ্ছা পূর্ণ হল না। ক্রমে তার মতবাদ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে। এভাবে খ্রিস্টান জগৎ দুইভাগে ভাগ হয়ে যায়। লুথাপন্থীরা পরিচিত হয় প্রোটেস্ট্যান্ট নামে। আর পোপের অনুগামীরা পরিচিত হয় রোমান ক্যাথলিক নামে।


• মূল্যায়ন : জার্মানি থেকে ধর্মসংস্কার আন্দোলন ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন দেশের মানুষ যেমন—ডেনমার্ক, নরওয়ে, সুইডেন, ইংল্যান্ড প্রোটেস্ট্যান্ট ধর্ম গ্রহণ করে। এভাবে ধর্মসংস্কার আন্দোলনের অন্যতম পুরোহিত, মানবতাবাদী ও চরম প্রতিবাদী নেতা রূপে মার্টিন লুথার স্মরণীয় হয়ে আছেন।


👉👉Click Here to View or Download  (pdf Format )👈👈


View PDF Format 


👉👉Click Here to View or Download  (pdf Format )👈👈


রচনাধর্মী প্রশ্ন (মান- ১৫)


ইউনিট-১ :


প্রশ্ন-১ রেনেসাঁসের বা নবজাগরণের সংজ্ঞা দাও। নবজাগরণের বৈশিষ্ট্যগুলি লেখো।


প্রশ্ন-২ নবজাগরণ কাকে বলে। নবজাগরণের পটভূমি বা প্রেক্ষিত।


প্রশ্ন-৩ নবজাগরণ কাকে বলে। সর্বপ্রথম ইতালিতে কেন নবজাগরণের সূচনা হয়।


প্রশ্ন-৪ নবজাগরণ বলতে কী বোঝা। সাহিত্যে নবজাগরণের প্রভাব আলোচনা করো।


প্রশ্ন-৫ রেনেসাঁ বা নবজাগরণ বলতে কী বোঝ। শিল্পে নবজাগরণের প্রভাব আলোচনা করো।


প্রশ্ন-৬ নবজাগরণ বলতে কী বোঝ। বিজ্ঞানচর্চার উপর নবজাগরণের প্রভাব আলোচনা করো।


প্রশ্ন-৭ মানবতাবাদ কী। চিত্রশিল্পে, সাহিত্যে, বিজ্ঞানে মানবতাবাদের প্রভাব আলোচনা করো।


প্রশ্ন-৮ ইউরোপে নবজাগরণের প্রভাব বা ফলাফল আলোচনা করো।


প্রশ্ন-৯ ম্যাকিয়াভেলির রাষ্ট্রচিন্তার বিভিন্ন দিকগুলি আলোচনা করো।


প্রশ্ন-১০ ইতালির বাইরে রেনেসাঁসের বিস্তার আলোচনা করো। বা, ইউরোপের অন্যান্য দেশে রেনেসাঁসের বিস্তার আলোচনা করো।


প্রশ্ন-১১ ইউরোপে ধর্মসংস্কার আন্দোলনের পটভূমি আলোচনা করো। সু.২৬


প্রশ্ন-১২ ধর্মসংস্কার আন্দোলনের প্রভাব বা ফলাফল আলোচনা করো।


প্রশ্ন-১৩ মার্টিন লুথারের নেতৃত্বে ধর্মসংস্কার আন্দোলনের পরিচয় দাও।


প্রশ্ন-১৪ জন ক্যালভিনের নেতৃত্বে ধর্ম সংস্কার আন্দোলনের পরিচয় দাও। কালভিনবাদ আলোচনা করো।


প্রশ্ন-১৫ সামন্ততন্ত্রের সংজ্ঞা দাও। এর উদ্ভব ও বিকাশ আলোচনা করো বা, সামন্ত্রতন্ত্রের পটভূমি আলোচনা করো।


প্রশ্ন-১৬ সামন্তপ্রথার বৈশিষ্ট্যগুলি আলোচনা করো।


প্রশ্ন-১৭ ইউরোপে সামন্তপ্রথার পতন বা অবক্ষয়ের কারণগুলি আলোচনা করো।


প্রশ্ন-১৮ খ্রিস্ক্রিয় পঞ্চদশ শতকে পশ্চিম ইউরোপে সামন্ততন্ত্রের পতন হলেও পূর্ব ইউরোপে দেরীতে হল কেন।


প্রশ্ন-১৯ সামন্ততন্ত্রের সংকট সম্পর্কে বিতর্কটি লেখো।


প্রশ্ন-২০ ম্যানর-এর সংজ্ঞা দাও। ম্যানরের মূল বৈশিষ্ট্যগুলি আলোচনা


প্রশ্ন-২১ সামন্ত অর্থনীতি থেকে পুঁজি অর্থনীতিতে উত্তরণের ক্ষেত্রে বিভিন্ন ঐতিহাসিকদের মধ্যে বিতর্কটি আলোচনা করো।


প্রশ্ন-২২ ইংল্যান্ডে প্রথম শিল্প বিপ্লব সূচনা হওয়ার কারণগুলি লেখো। ইংল্যান্ডের


শিল্প বিপ্লবের ফলাফল বা প্রভাব আলোচনা করো।


প্রশ্ন-২৩ পুঁজিবাদী সমাজের বিকাশ ও উদ্ভব সম্পর্কে আলোচনা করো।


প্রশ্ন-২৪ ষোড়শ শতকের আটলান্টিক দাস বাণিজ্য সংক্ষেপে আলোচনা করো। বা, ট্রান্স আটলান্টিক স্লেভ ট্রেড সম্পর্কে লেখো। বা, ইউরোপীয় অর্থনীতিতে আফ্রিকান দাস ব্যবস্থা কতখানি প্রভাব ফেলেছিল।


প্রশ্ন-২৫ ষোড়শ শতকে ইউরোপে মূল্য বিপ্লব সম্পর্কে যা জানো আলোচনা করো।


প্রশ্ন-২৬ ষোড়শ শতকে ইংল্যান্ডের এনক্লোজার আন্দোলন সম্পর্কে আলোচনা করো অথবা, ষোড়শ শতকে ইংল্যান্ডের বেষ্টনী প্রথা সংক্ষেপে লেখো।


প্রশ্ন-২৭ ভূমধ্যসাগর থেকে আটলান্টিক মহাসাগরের অর্থনৈতিক বিবর্তন সংক্ষেপে আলোচনা করো। বা, ষোড়শ শতক থেকে ইউরোপীয় অর্থনীতির ভরকেন্দ্র কীভাবে ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল থেকে আটলান্টিক সাগরীয় অঞ্চলে সরে যেতে থাকে।


প্রশ্ন-২৮ মার্কেন্টাইল অর্থনীতি বলতে কী বোঝ। মার্কেন্টাইলের উদ্ভব, বৈশিষ্ট্য ও বিকাশ আলোচনা করো।


প্রশ্ন-২৯ ষোড়শ শতকে ইউরোপে কৃষিক্ষেত্রে কি পরিবর্তন দেখা দিয়েছিল? অথবা, ষোড়শ শতকের ইউরোপের কৃষিবিপ্লব সম্পর্কে আলোচনা করো।


প্রশ্ন-৩০ ষোড়শ শতাব্দীর ইউরোপে কৃষির বিস্তার বা প্রসার আলোচনা করো।


প্রশ্ন-৩১ নতুন বিশ্বে স্পেনের উপনিবেশ বিস্তার সংক্ষেপে আলোচনা করো। অথবা, ষোড়শ শতকে স্পেনের উপনিবেশ সম্পর্কে যা জানো লেখো।


প্রশ্ন-৩২ সপ্তদশ শতকে নতুন বিশ্ব উপনিবেশে ফ্রান্স ও পর্তুগালের ভূমিকা আলোচনা করো।


প্রশ্ন-৩৩ সপ্তদশ শতকে ডাচদের উপনিবেশ আলোচনা করো।


প্রশ্ন-৩৪ এশিয়া মহাদেশের ইউরোপের ঔপনিবেশিক শাসনের প্রসার সংক্ষেপে আলোচনা করো। অথবা, ষোড়শ শতক থেকে অষ্টাদশ শতক পর্যন্ত এশিয়া মহাদেশের ইউরোপীয় ঔপনিবেশিক শাসন সংক্ষেপে আলোচনা করো।


প্রশ্ন-৩৫ পঞ্চাশ দশক থেকে ষষ্ঠ শতক পর্যন্ত ইউরোপের উপনিবেশ বিস্তারের কারগুলি আলোচনা করো


Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.